<<< বিজ্ঞপ্তি >>>
@ দৈনিক তিস্তা সংবাদে আপনাকে স্বাগতম। এখন থেকে অনলইনে নিয়মিত ভিজিট করে আমাদের সঙ্গে থাকুন <<< www.dailyteestasangbad.com / fb:teestasangbad >>>॥ ইমেইল: news.teestasangbad@gmail.com
শিরোনাম ॥
এলেঙ্গা-রংপুর চারলেনের ব্যয় বাড়লো ৪৭৬৩ কোটি টাকা

এলেঙ্গা-রংপুর চারলেনের ব্যয় বাড়লো ৪৭৬৩ কোটি টাকা

ঢাকা ব্যুরো॥
উত্তরবঙ্গে শিল্প-কারখানার প্রসারসহ পাশের দেশের সঙ্গে ব্যবসা-বাণিজ্য উন্নয়নে চারলেন হচ্ছে এলেঙ্গা থেকে রংপুর মহাসড়ক। রংপুর মহাসড়ক থেকে বুড়িমারী ও বাংলাবান্ধা হয়ে ভারত-নেপালের সঙ্গে বাণিজ্য প্রসারেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে মহাসড়কটি। ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা মসৃণ করতে ১৯০ কিলোমিটার সড়কটি চারলেনে রূপ দেওয়া হবে। এলেঙ্গা-হাটিকুমরুল-রংপুর মহাসড়ক চারলেনে উন্নীতকরণ প্রকল্পের আওতায় এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। উত্তরবঙ্গের স্বপ্নের প্রকল্প এটি। তবে প্রকল্পের মোট ব্যয় ও সময় আরো বাড়ানো হয়েছে।
মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) একনেক সভায় এটিসহ মোট তিন প্রকল্প অনুমোদন করা হয়। গণভবন থেকে একনেক সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা। অন্যদিকে শেরেবাংলা নগর এনইসি সম্মেলনকক্ষে পরিকল্পনা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আসাদুল ইসলাম প্রকল্পের সার্বিক বিষয় উপস্থাপন করেন। প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে। দেখতে দেখতে চার বছর গড়িয়েছে কাজ। অথচ প্রকল্পের আর্থিক ও ভৌত অগ্রগতি সন্তোষজনক নয়। মেয়াদ বাকি ছিল ২০২১ সালের আগস্ট মাস পর্যন্ত। এজন্য প্রকল্পের মেয়াদ ও ব্যয় বাড়ানো হয়েছে। মূল প্রকল্পের ব্যয় ছিল ১১ হাজার ৮৯৯ কোটি টাকা। একনেক সভায় আরো ৪ হাজার ৭৬৩ কোটি টাকা বাড়িয়ে ১৬ হাজার ৬৬২ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।
ফলে উত্তরবঙ্গবাসীর স্বপ্নপূরণে আরো তিন বছর বাড়তি সময় লাগবে। বর্ষা মৌসুম, কোভিড-১৯ ও জমি অধিগ্রহণ বিলম্বিত হওয়ায় কাজের অগ্রগতি কম হয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। প্রকল্পটি টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, গাইবান্ধা ও রংপুর জেলায় বাস্তবায়িত হচ্ছে। এখনো সড়ক ও সেতুগুলোর সার্ভে এবং ডিজাইনের কাজ চূড়ান্ত হয়নি। মাঠ পর্যায়ের পূর্তকাজের তদারকির কাজ চলমান। সাতটি নির্মাণ প্যাকেজের আওতায় সড়ক ও সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয়েছে সম্প্রতি। প্রকল্পের আওতায় ১ হাজার ৪৬১ মিটার দৈর্ঘ্যের ২৬টি সেতু, ৪১১ মিটারের একটা রেলওয়ে ওভারপাস ও ১১টি স্টিল ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ করা হবে। এলেঙ্গায় ১ হাজার ৫৩৮ মিটার, কড্ডার মোড়ে ৩৯৬ মিটার ও গোবিন্দগঞ্জে একটি ফ্লাইওভার নির্মাণ করা হবে। এছাড়া সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু ইপিজেড ও গোবিন্দগঞ্জ পলাশবাড়ী এলাকায় নতুন করে দু’টি ফ্লাইওভার নির্মাণকাজ যোগ হয়েছে। এই সড়কগুলোর মোট দৈর্ঘ্য হবে ৬শ কিলোমিটার। ১৯০ কিলোমিটার সড়কটি এর একটি অংশ। এই সড়কের মাধ্যমে রংপুর-সৈয়দপুর-বাংলাবান্ধা হয়ে ভারতে প্রবেশ করা যাবে। ভুটান ও নেপালের সঙ্গে বাণিজ্য প্রসারে এই করিডোরটি অন্যতম অবদান রাখবে। আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক বাণিজ্য সহজ করতেও রুটটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।
নানা কারণে প্রকল্পটি হাতে নেওয়া হয়েছে। এ রুটটি ঢাকার সঙ্গে উত্তরবঙ্গের সরসরি দ্রুত সময়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত করবে। উত্তরবঙ্গ থেকে ঢাকায় এ রুটে প্রতিদিন ১২ থেকে ২৯ হাজার যানবাহন চলাচল করে। ২০২০ সালে এই সংখ্যা ৪৩ হাজার ছাড়াবে। এসব চিন্তা মাথায় রেখেই প্রকল্পটি প্রণয়ন করা হয়েছে।

এই সংবাদ ভালো লাগলে শেয়ার করুন।।

চায়না শিশুদের করুণ দোয়া

আজকের বাংলা তারিখ

  • আজ শুক্রবার, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং
  • ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (হেমন্তকাল)
  • ১৮ই রবিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী

ইংরেজি বর্ষ-২০২০

কোরআন-হাদিসের বাণী

সত্য লোকের নিকট অপ্রিয় হলেও তা প্রচার কর -আল হাদিস

॥ সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ - ২০২০
Desing & Developed BY NewsSKy